অনুমোদন পেল বিশ্বের সবচেয়ে দামি, প্রায় ৩৬ কোটি টাকার ওষুধ

অনুমোদন পেল বিশ্বের সবচেয়ে দামি, প্রায় ৩৬ কোটি টাকার ওষুধ

বিশ্বের সবচেয়ে দামি ওষুধের অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নীতিনির্ধারকরা। ‘হিমজেনিক্স’ নামে এই ওষুধটির প্রতি ডোজের দাম ৩৫ লাখ মার্কিন ডলার; যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৩৫ কোটি ৭০ লাখ টাকারও বেশি।

বুধবার (২৩ নভেম্বর) মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, হিমোফিলিয়ায় আক্রান্ত রোগীদের জন্য ‘হিমজেনিক্স’ একটি নতুন ওষুধ। রোগমুক্ত হতে এর মাত্র এক ডোজই যথেষ্ট। ওষুধটি তৈরি করেছে বায়োটেক কোম্পানি সিএসএল বেহরিং।

হিমোফিলিয়া মূলত রক্ত জমাট বাঁধায় সমস্যাজনিত একটি গুরুতর রোগ। এ ধরনের রোগীদের রক্ত সহজে জমাট বাঁধে না। ফলে কোনো কারণে কেটে গেলে বা অস্ত্রোপচারের সময় রোগীদের শরীর থেকে রক্তপাত বন্ধ হতে চায় না। এটি তাদের মৃত্যুঝুঁকিতে ফেলে দিতে পারে।

বায়োটেকনোলজিতে বিনিয়োগকারী ও লোনকার ইনভেস্টমেন্টের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ব্র্যাড লোনকার বলেন, হিমজেনিক্সের দাম যদিও একটু বেশি, তবু আমি মনে করি, এটি সফল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। প্রথম কারণ, বিদ্যমান ওষুধগুলোও অনেক ব্যয়বহুল। দ্বিতীয়ত, হিমোফিলিয়া রোগীরা ক্রমাগত রক্তপাতের ভয়ে থাকেন। তাই তাদের কাছে জিন থেরাপি আকর্ষণীয়ই হবে।

ইউনিকিউর এনভির তথ্যমতে, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে প্রায় ১ কোটি ৬০ লাখ মানুষ হিমোফিলিয়া বি’তে আক্রান্ত। সেই তুলনায় হিমোফিলিয়া এ’র রোগী প্রায় পাঁচগুণ বেশি।

এর আগে, চলতি বছরের শুরুর দিকে থ্যালাসেমিয়ার চিকিৎসায় জিনটেগ্লো নামে একটি ওষুধ অনুমোদন পায়। এর দাম ধরা হয় ২৮ লাখ ডলার। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২৮ কোটি ৫৬ লাখ টাকা।

বিভিন্ন সংবাদ