রোলস রয়েস গাড়ি পাচ্ছেন না আর্জেন্টাইনকে হারানো সৌদি ফুটবলাররা

রোলস রয়েস গাড়ি পাচ্ছেন না আর্জেন্টাইনকে হারানো সৌদি ফুটবলাররা

অটোমোবাইল শিল্পে রোলস-রয়েস গাড়ির নামটি বর্তমানে পরিণত হয়েছে আভিজাত্য, রুচিশীলতা ও উৎকর্ষের আদর্শ মাপকাঠিতে। বৃটিশ এই যানটি যেন সম্ভ্রান্ত ব্র্যান্ডের মর্যাদা।

প্রিন্সেস ডায়ানাও একটি রুপালি রোলস রয়েস ব্যবহার করেছিলেন যেটি রীতিমতো আলোড়ন তুলেছিল একসময়। আরব শেখদের শৌখিনতার কথা উঠলেই চলে আসে রোলস-রয়েসের কথা। এবার বিশ্বকাপ ফুটবলেও আলোচিত হয়ে উঠেছে রোলস-রয়েস।

উপসাগরীয় দেশ কাতারের লুসাইলস্টেডিয়ামে চলতি বছরের বিশ্বকাপে দু’বারের ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনাকে ২-১ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে চমকে দিয়েছে সৌদি আরব।

বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে সৌদি আরবের সঙ্গে আর্জেন্টিনার ব্যবধান ৪৮। যে কারণে অনেকের প্রত্যাশা ছিল ফুটবল কিংবদন্তি লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা খুব সহজেই সৌদি আরবকে হারিয়ে দেবে।

আর্জেন্টিনা গত তিন বছর ধরে অপরাজিত ছিল এবং ২০২২ সালের টুর্নামেন্ট জয়ের অন্যতম ফেভারিট মনে করা হয় দেশটিকে। সৌদি আরব তো বটেই, পুরো মধ্যপ্রাচ্যের লোকজনকে আনন্দে ভাসিয়ে দেওয়া সৌদি আরবের ওই জয়ের পর দেশজুড়ে একদিনের রাষ্ট্রীয় ছুটি ঘোষণা করা হয়েছিল।

বেশ কিছু গণমাধ্যমে গুঞ্জন উঠেছিল সৌদি যুবরাজ যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান নাকি আর্জেন্টিনাকে হারানো প্রত্যেক সৌদি ফুটবলারকে একটি করে রোলস-রয়েস উপহার দিচ্ছেন! এই গুঞ্জন এখনো চলছে। খবরেও আসছে।

কিন্তু শনিবার সৌদির তারকা ফুটবলার সালেহ আল-শেহরি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তাদের রোলস-রয়েস উপহারের খবরটি ‘গুজব’।

আরব নিউজ জানিয়েছে, এক সংবাদ সম্মেলনে সালেহ জানিয়েছেন, তাদের রোলস-রয়েস উপহার পাওয়ার খবরটি সত্য নয়।

কাতারে গতকাল নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচের আগে কথিত উপহার নিয়ে নিজেদের মনোভাব তুলে ধরে এই ফুটবলার বলেন, ‘দেশের প্রতি দায়িত্বের অংশ হিসেবে আমরা এখানে নিজের দেশের হয়ে খেলতে এসেছি।

নিজেদের সেরাটা দিতে এসেছি, আর এটাই আমাদের সবচেয়ে বড় অর্জন। ওই জয়ই আমাদের পুরস্কার।’

এদিকে নিউইয়র্ক পোস্ট ও ডেইলি এক্সপ্রেসের কাছে সৌদি আরবের জাতীয় ফুটবল দলের কোচ হার্ভে রেনার্ড বলেছেন, এ কথা সত্য নয়। এখন কিছু পাওয়ার সময় নয়।

খেলাধুলা