পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের পর লাখো মানুষ উঠেছে সেতুতে। সবাই পয়ে হেঁটে হেঁটে পদ্মা সেতু পাড়ি দিচ্ছে। নারী, পুরুষ শিশু, বৃদ্ধ এই পদ্মা সেতু দেখতে এসেছে। সাধারণ মানুষ স্বাধীনতা বিজয়ের পর পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে তারা আরেকটি বিজয় দেখছেন বলে মন্তব্য।

পদ্মা সেতুতে উঠতে পেরে অনেকে খুব আনন্দে উচ্ছাসিত হয়ে পড়ে। কেউ কেউ মোটরসাইকেল নিয়েও সেতুতে ওঠেন। সেসময় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের কাউকে সেতুতে উঠতে বাধা প্রদান করতে দেখা যায়নি।

স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন নিয়ে চলছে আনন্দ, উচ্ছ্বাসের ঢেউ। জাজিরা ও শিবচর প্রান্তে থাকা লাখো মানুষ উল্লাসে মেতে উঠেছে। সাধারণ মানুষ আনন্দ মিছিল করে বাঁশি বাজিয়ে আনন্দ ফুটে উঠেন।

সারা বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে সাধারণ মানুষ ব্যানার ফেস্টুন ও প্ল্যাকার্ড হাতে পদ্মা সেতু দেখতে ও প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানাতে এসেছেন।

আবেগে দিশেহারা হেয়ে সাধারণ মানুষ পায়ে হেঁটে সেতুতে উঠে পড়েছে। সেতু কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী সেতুতে হেঁটে পার হওয়া বা সেতুতে থামা যাবে না বলা থাকলেও মানছে না উৎসবমুখর জনতা। মানুষ হইহুল্লা করে সেতু উপরে উঠতে শুরু করে।

অনেক বাধা-বিপত্তি উপেক্ষা আর ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে প্রমত্তা পদ্মার বুকে খুলে গেল স্বপ্নের দুয়ার। বাংলাদেশের সামর্থ্য, সক্ষমতা আর সাহসের প্রতীক দেশের অহংকার, বিশ্বের বিস্ময় পদ্মা সেতু শনিবার উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এদিন সকালে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া পয়েন্টে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। মাওয়া পয়েন্টে টোল পরিশোধের পর উদ্বোধনী ফলক ও ম্যুরাল উন্মোচনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.