বছরের পর বছর বিনা টিকেটে ট্রেনে ভ্রমণ, পা;প’মুক্ত হতে ১০ হাজার টাকা প্রদান

বছরের পর বছর বিনা টিকেটে ট্রেনে ভ্রমণ, পা;প’মুক্ত হতে ১০ হাজার টাকা প্রদান

সারাজীবন বিনা টিকেটে ভ্রমণ। কিন্তু এখন তার ভুল ভেঙেছে। নিজের ভুল স্বীকার করে কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব রেলওয়ে স্টেশনে মাশুল জমা দিলেন বিনা টিকিটে ভ্রমণ করা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ট্রেন যাত্রী। খবর যুগান্তর

শনিবার রাত সাড়ে ৯টায় ভৈরব রেলওয়ে স্টেশনের প্রধান বুকিং সহকারী সোহাগ হাসানের নিকট তিনি ৯ হাজার ৯৯০ টাকা জমা দিয়ে রশিদ গ্রহণ করে পা;প;মুক্ত হন।

তিনি টাকা পরিশোধের সময় বলেছেন, বহু বছর ধরে দিনের পর দিন আমি বিনা টিকিটে ট্রেন ভ্রমণ করেছি, এতে রাষ্ট্রের আর্থিক ক্ষ;তি হয়েছে বলে মনে করছি।

শনিবার রাতে টাকা জমা দেওয়ার পর ওই ব্যক্তি জানিয়েছেন, আবারও তিনি টাকা নিয়ে আসবেন, তখন তার নাম পরিচয় প্রকাশ করবেন।

প্রধান বুকিং সহকারী সোহাগ হাসান জানান, শনিবার রাত সাড়ে ৯টায় হঠাৎ করে পঞ্চাশোর্ধ বয়সের এক ব্যক্তি আমার রুমে ঢুকে বলেন, তিনি বহু বছর ধরে দিনের পর দিন বিনা টিকিটে ট্রেন ভ্রমণ করেছেন।

এতে তিনি খুবই অ;নু’ত’প্ত। কারণ তিনি রাষ্ট্রের আর্থিক ক্ষতি করেছেন বলে মনে করছেন। এ কারণে অ;নু’ত’প্ত হয়ে স্বেচ্ছায় পা;প’মুক্ত হতে মাশুল দিতে চান। মূলত ধ;;র্মী; য় অনুভূতির কারণেই তার এই সিদ্ধান্ত বলে তিনি জানান।

ওই ব্যক্তি আরও বলেন, যারা বিনা টিকিটে রেল ভ্রমণ করে তারা আমার ঘটনা দেখে তাদের বিবেক জাগ্রত হতে পারে বলে তিনি মনে করেন।

তার কথা শোনার পর বাংলাদেশ রেলওয়ের নিয়ম বিধি মোতাবেক তার ইচ্ছা অনুযায়ী ৯ হাজার ৯৯০ টাকা টিকিটের মা’শু’ল হিসেবে গ্রহণ করি।

টাকা পরিশোধের সময় তিনি তার নাম প্রকাশ করতে আগ্রহী ছিলেন না। তবে তিনি বলে গেছেন, আবারও টাকা নিয়ে এসে আরও কিছু টাকা পরিশোধ করার পর তার পরিচয় জানাবেন।

সারা দেশ