সাফ উইমেন্স চ্যাম্পিয়নশিপে ইতিহাস গড়া নারী ফুটবল দলের ডিফেন্সের খেলোয়াড় আঁখি খাতুনের বাবাকে হু;মকি দেওয়ার অভিযোগে শাহজাদপুর থানা পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মামুনুর রশিদ ও কনস্টেবল আবু মুসাকে ক্লোজড করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সিরাজগঞ্জের পুলিশ সুপার আরিফুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ‘ফুটবলার আঁখির বাবাকে হুমকি দেওয়ার ঘটনায় দুই পুলিশ সদস্যকে ক্লোজড করা হয়েছে। একই সঙ্গে সহকারী পুলিশ সুপারকে (শাহজাদপুর সার্কেল) বিষয়টি তদন্তের জন্য বলা হয়েছে।’

এর আগে, বৃহস্পতিবার সকালে আঁখির বাবাকে হু;ম;কি দেওয়ার ঘটনা বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয় এবং এ ঘটনায় পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মামুনুর রশিদ ও কনস্টবল আবু মুসাকে সিরাজগঞ্জ পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়।

এর আগে গতকাল বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় শাহজাদপুর উপজেলার পৌর সদরের পাড়কোলা গ্রামে আঁখির বাড়িতে এএসআই মামুনুর রশিদ ও কনস্টেবল আবু মুসা সিভিল পোশাকে একটি নোটিশ নিয়ে হাজির হন। আঁখির বাবা আক্তার হোসেনকে শাহজাদপুর থানার এএসআই মামুনুর রশিদ জানান, দ্বাবারিয়া গ্রামের মৃ;ত মেছের প্রাং এর ছেলে মো. মকরম প্রাং বাদী হয়ে সম্প্রতি সিরাজগঞ্জের বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা

ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দ্বাবারিয়া মৌজায় জোরপূর্বক জমি দখলের পায়তারার অ;ভি;যো;গে একটি মা;ম’লা করেছেন। ফলে খুন জখম হওয়ার সম্ভাবনা থাকায় বিজ্ঞ আদালত উভয়পক্ষকে ওই নালিশি সম্পত্তিতে স্থিতি অবস্থা বজায় রাখতে বলেছেন। এতে ফুটবলার আঁখিসহ ৫ জনকে বিবাদী করা হয়েছে।

এ সংক্রান্ত আদালতের নোটিশটি স্বাক্ষর প্রদান পূর্বক গ্রহণের জন্য এএসআই মামুনুর রশিদ আঁখির বাবা আক্তার হোসেনকে অনুরোধ করলে তিনি তা গ্রহণে অস্বীকৃতি জানান। এ সময় এএসআই মামুনুর রশিদ তার ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। আঁখির বাবা আক্তার হোসেন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার মেয়ে আঁখিকে ওই জমি দিয়েছেন।

ষড়যন্ত্রমূলকভাবে একটি কুচক্রী মহল জাল দলিলের মাধ্যমে ওই জমি দখলের পায়তারা করছে।’ শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে বলেন,

‘বিষয়টি জানার পর রাতেই আমি ও শাহজাদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম আঁখির বাড়িতে ফুলের তোড়া ও মিষ্টি নিয়ে গিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়ে এসেছি। এছাড়া এ ঘটনায় তাদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.