বরগুনার আমতলীতে বিয়ে খেতে গিয়ে সেতু ভেঙে মাইক্রোবাস খালে পড়ে মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার ৯ বরযাত্রী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় বেঁচে গেছে ৬ মাসের শিশু সাবরিন।

মাইক্রোবাস দুর্ঘটনায় মা রাইতি খান (২৫) মারা গেলেও নিজ সন্তানকে রক্ষা করেছেন তিনি। এ ঘটনায় বেঁচে গেছেন শিশুর বাবা। তার কোলেই অপলক দৃষ্টিতে চারদিকে তাকিয়ে আছে শিশু সাবরিন। সে হয়তো জানে না তার মা না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন।

শনিবার (২২ জুন) দুপুরে আমতলী উপজেলার ৫নং চাওড়া ইউনিয়ন এবং ৪নং হলদিয়া ইউনিয়নের মাঝামাঝি হলদিয়া ব্রিজ ভেঙে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় চারজন আহত হয়েছেন এবং আরও তিনজন নিখোঁজ রয়েছেন।

জানা যায়, শিশু সাবরিনের মা মাইক্রোবাসে ছিলেন। সেতু ভেঙে মাইক্রোবাসটি যখন খালের মধ্যে ডুবে যাচ্ছিল তখন মা রাইতি খান তার কোল থাকা শিশু সাবরিনকে কচুরিপানার মধ্যে ফেলে দেন।

পেছনের অটোতে ছিলেন শিশু সাবরিনের বাবা। তিনিও পানিতে ডুবে যাচ্ছিলেন। কোনোভাবে সাঁতরে ওপরে উঠে আসতেই তার চোখ পড়ে কচুরিপানার ওপর। পরে তিনি নিজ সন্তানকে উদ্ধার করেন।

জানা গেছে, গত বুধবার (১৯ জুন) সকালে শিবচর থেকে মাহাবুব এবং তার পরিবারের সদস্যরা খালাতো বোনের বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বরগুনার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। গতকাল শুক্রবার বরপক্ষ এসে বিয়ে করে নিয়ে যায়। আজ শনিবার দুপুরে তারা মাইক্রোবাসযোগে বউভাতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। মাহাবুব ও তার পরিবারের সদস্যদের বহনকারী মাইক্রোবাসটি হলদিয়া ইউনিয়নের ঝুঁকিপূর্ণ লোহার ব্রিজ পার হওয়ার সময় ব্রিজটি ভেঙে খালে পড়ে যায়।

আরাও পড়ুন... সেরা উক্তি