টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশকে নিয়ে হয়তো অনেকে সেভাবে আশা দেখেনি। তার কারণও আছে, এর আগে টাইগারদের সাম্প্রতিক ফর্ম আশানুরূপ ছিল না। তবে তিন ম্যাচ জিতে ঠিকই তারা পা রেখেছে সুপার এইটে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে সেরা আটের লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ। গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের অন্যতম হাতিয়ার ছিলেন রিশাদ হোসেন, তাই তো সুপার এইটের আগে তাকেই হুঙ্কার দিয়ে রাখলেন অজি ব্যাটার টিম ডেভিড।

আগামী ২১ সুপার এইটে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামবে রিশাদ–সাকিবরা। অ্যান্টিগার নর্থ সাউন্ডে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ৬টায়। সুপার এইটসহ টুর্নামেন্টে বাকি সব ম্যাচই হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ভিন্ন ভিন্ন ভেন্যুতে। যেখানে ঝলক দেখানোর জোর সম্ভাবনা স্পিনারদের। তাই তো টাইগার স্পিনার রিশাদকে নিয়ে বাড়তি ভাবছে প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া।

বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচের আগে এই লেগস্পিনারকে নিয়ে মারকুটে ব্যাটার টিম ডেভিড বলেন, ‘আমি মনে করি এটাই বিশ্বকাপের প্রকৃতি। তাই না? আপনি প্রতিটি দলের বিপক্ষে একবার খেলতে পারবেন। আপনি যদি ফাইনালে খেলেন তাহলে আপনি একটি দলকে দুইবার পেতে পারেন। আবার অনেকের বিপক্ষে খেলতেও পারবেন না। আপনি তাদের নিয়ে বেশি মাথা ঘামানোর সুযোগ পাবেন না। আমার মনে হয় না আমাদের দলের কেউ তার (রিশাদের) বিপক্ষে খেলেছি। তবে আমরা তার ওপর চড়াও হবো।’

স্পিনারদের বাড়তি সহায়তা পাওয়ার কথা মাথায় রেখে টিম ডেভিড নিজেও বোলিং অনুশীলন শুরু করেছেন। অজিদের প্রয়োজনে হয়তো তাকেও ম্যাচে হাত ঘোরাতে দেখা যাবে বলে জানান ডেভিড, ‘এটি আপনাকে আরও কিছু বিকল্প দেয়। আমি ৯ মাস আগে নেটে লেগস্পিন করা শুরু করেছি। সত্যিই ভালো হচ্ছে। তাই বোলিং নিয়েও পরিশ্রম করছি। সত্যি বলতে আমি বোলিং উপভোগ করি। মাঠে ২০ ওভার দাঁড়িয়ে থাকার চেয়ে এটি আরও উপভোগ্য।’

উল্লেখ্য, চলতি বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ৪ ম্যাচে ৭ উইকেট নিয়েছেন ২১ বছর বয়সী এই টাইগার ক্রিকেটার। বাংলাদেশের সুপার এইটে ওঠার পেছনেও তার ভূমিকা ছিল অনেক। টাইগারদের গুরুত্বপূর্ণ দুই ম্যাচেই দলের সবচেয়ে প্রভাব বিস্তারকারী বোলারও ছিলেন রিশাদ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মোড় ঘোরানো স্পেলে ২২ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন। পরের ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৩২ রানে নেন ১ উইকেট। যদিও ম্যাচটি বাংলাদেশ হেরে যায় ৪ রানে।

সুপার এইটে ওঠার দৌড়ে টাইগারদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছিল নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে। তার আগে তাদের বিপক্ষেও রিশাদ মোড় ঘোরানো একটি স্পেল উপহার দেন। ডাচদের বিপক্ষে তিনি ৩৩ রানে শিকার করেন ৩ উইকেট। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে উইকেট না পেলেও ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রান দেন রিশাদ।

আরাও পড়ুন... সেরা উক্তি