এতিম, বিধবা ও গরিব পরিবারগুলোর মাঝে ঈদের প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিন কোরবানির মাংস বিতরণ করেছে আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা কাতার চ্যারিটি। এ বছর কোরবানির এই প্রোগ্রামের মাধ্যমে কমপক্ষে ২০ হাজার দরিদ্র মানুষ উপকৃত হয়েছে বলে আজ বুধবার সংস্থাটির এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

টাকা না দেওয়ায় মায়ের উপর অভিমান করে ছেলের আত্মহত্যাটাকা না দেওয়ায় মায়ের উপর অভিমান করে ছেলের আত্মহত্যা
বিভিন্ন জেলায় কাতার চ্যারিটির এতিমখানাসহ দেশের ১৮টি জায়গা থেকে এই কোরবানির মাংস বিতরণ করা হয়। ভৈরবে সংস্থাটির এতিমখানায় গোশত বিতরণ কার্যক্রমে অংশ নেন কাতার চ্যারিটির কান্ট্রি ডাইরেক্টর ড. আমিন হাফিজ ওমর। অন্যান্য স্পটগুলোতে সংস্থাটির কর্মকর্তারা উপস্থিত থেকে বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করেন।

কাতার চ্যারিটির এই মানবিক উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন সরকারের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা।

উপভোগীরাও তাদের কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। ধামরাইয়ে কাতার চ্যারিটির মারকাজ আজ্জাজ এতিমখানায় গোশত নিতে এসে বিধবা সালমা আক্তার বলেন, ‘কোরবানির গোশত পেয়ে আমরা খুবই খুশি। কারণ আমাদের কোরবানি দেওয়ার কিংবা গোশত কেনার কোনো সামর্থ্য নেই।’

কাতার চ্যারিটির প্রোগ্রাম ডিরেক্টর ওসমান বশির বলেন, সংহতি ও সহমর্মিতার মূল্যবোধকে ধারণ করে দরিদ্র মানুষের জন্য কোরবানি প্রোগ্রাম বাস্তবায়ন করেছে কাতার চ্যারিটি। আগামীতেও এই উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।

আরাও পড়ুন... সেরা উক্তি