নাচের কারণে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে বদলে গেল তিনজনের জীবন।নিজের বিয়ের অনুষ্ঠানে কাজিনের সঙ্গে নাচছিলেন কনে। বিষয়টি সইতে না পেরে কনেকে থাপ্পড় মেরে বসেন হবু বর। সেই অপমান সহ্য না করতে পেরে বিয়ে ভেঙে দিয়ে অপর এক কাজিনকে বিয়ে করেন কনে।ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের তামিলনাডু রাজ্যের কুদ্দালোরে জেলার পানরুতিরে। খবর- ইন্ডিয়া টাইমস, এনডিটিভি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, গত বছরের ৬ নভেম্বর ওই জুটির বাগদান সম্পন্ন হয়। চলতি বছরের ২০ জানুয়ারি রিদমপুলিয়ার গ্রামে তাদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কনে সদ্য মাস্টার্স শেষ করেছেন। বর রাজ্যের পেরিয়াকাত্তুপালাইয়ামের বাসিন্দা। কাজ করেন চেন্নাইয়ের একটি প্রতিষ্ঠানে, সিনিয়র ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে।

স্থানীয় রীতি অনুযায়ী বিয়ের একদিন আগে রিসিপশনের আয়োজন করা হয়। এতে আনা হয় ডিজেও। গানের তালে তালে ওই জুটি খুব আনন্দের সঙ্গে নাচছিলেন। এ সময় তাদের সঙ্গে যোগ দেন কনের এক কাজিন। প্রথমে ওই কাজিন কনের হাত ধরে নাচছিলেন। পরে কনে ও কাজিন দুজনই হাত দিয়ে একে অপরকে অনেকটা জড়িয়ে ধরেন। এতে রেগে যান বর। একপর্যায়ে হবু স্ত্রীকে থাপ্পড় মেরে বসেন।

এরপর বেঁকে বসেন কনে। সিদ্ধান্ত নেন বিয়ে না করার। সায় দেয় তার পরিবারও। তখন অনুষ্ঠানে আসা অপর এক কাজিনের সঙ্গে ওই কনের বিয়ে দেওয়া হয়। তবে এ ঘটনার পর ক্ষতিপূরণ চেয়ে অভিযোগ দায়ের করেছে বরের পরিবার। তাদের দাবি, কনেপক্ষ তাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছে। বিয়ের জন্য সাত লাখ রুপি খরচ হয়েছে বলে জানিয়েছেন তারা।

স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ওই বরের অভিযোগ নথিভুক্ত করা হয়েছে। তবে তার বিরুদ্ধে কনেকে চড় মারার অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.