শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৭ টায় উপজেলার চর ফকিরা ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ভূমিহীন বাজারের মসজিদের পুকুরে ইলিশটি পাওয়া যায়। মিঠা পুকুরের পানিতে ইলিশ মাছটি পাওয়ায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ খবর চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে তাজা ইলিশ দেখতে স্থানীয়রা ভিড় জমান।

জানা যায়, ভূমিহীন বাজারের মসজিদের পুকুরটি স্থানীয় বাসিন্দা মোহাম্মদ আবু নাছের সজিব সেচ দিয়ে পানি কমান। পানি প্রায় কমে আসলে জেলেদের জাল দিয়ে মাছগুলো ওপরে তুলেন।

এ সময় অন্যান্য মাছের সঙ্গে একটি রুপালি ইলিশ ধরা পড়ে। মসজিদের পুকুরে ইলিশ মাছ পাওয়ার খবরে মাছটি দেখতে ভিড় জমায় স্থানীয়রা। এরপর জীবন্ত মাছটি ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেওয়ার পর এলাকায় বেশ কৌতূহলের সৃষ্টি হয়।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন বলেন, আমি এ ইলিশ মাছের ছবি দেখেছি। এটি একেবারে অরজিনাল টাটকা ইলিশ। চরফিকরা ও চরএলাহী ইউনিয়ন হচ্ছে নদী বেষ্টিত এলাকা। হয়তো জোয়ারের পানিতে ইলিশ মাছ ঢুকে পড়ে এই পুকুরে বড় হয়।

এ বিষয়ে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমুদ্রবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান মো. নাজমুস সাকিব খান বলেন, ইলিশ আমাদের জাতীয় সম্পদ। ইলিশ মাছ একটি বিচিত্র বৈশিষ্ট্যের মাছ। ইলিশের রেণু কোনো না কোনোভাবে পুকুরে প্রবেশ করেছে। তবে এখন দেশে পুকুরে ইলিশ চাষ নিয়ে গবেষণা চলছে।

মা নিয়ে উক্তি বাংলা উক্তি