শিগগিরই সুদের হার না কমানোর আভাস দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ (ফেড)। এতে দেশটির মুদ্রা ডলারের মান বেড়েছে। সঙ্গত কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে স্বর্ণের দাম কমেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে সিএনবিসির এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে।

তাতে বলা হয়, বুধবার (৩১ জানুয়ারি) কার্যদিবস শেষে স্পট মার্কেটে বৈশ্বিক বেঞ্চমার্ক স্বর্ণের দর হ্রাস পেয়েছে শূন্য দশমিক ১ শতাংশ। প্রতি আউন্সের মূল্য স্থির হয়েছে ২০৩৪ ডলার ৩৭ সেন্টে। দিনের শুরুতে বেঞ্চমার্কটির দরপতন ঘটে ১ শতাংশ।

সবমিলিয়ে চলতি মাসে নিরাপদ আশ্রয় ধাতুটির দাম নিম্নমুখী হয়েছে ১ দশমিক ৩ শতাংশ। এতে এখনও আউন্সপ্রতি দর ২০০০ ডলারের ওপরে আছে। চলমান বছরের বাকি সময় এই স্তরেই থাকতে পারে স্বর্ণের মূল্য।

একই কর্মদিবসে ফিউচার মার্কেটে যুক্তরাষ্ট্রের বেঞ্চমার্ক স্বর্ণের সরবরাহ মূল্য নিম্নগামী হয়েছে শূন্য দশমিক ৮ শতাংশ। প্রতি আউন্সের দাম নিষ্পত্তি হয়েছে ২০৬৭ ডলার ৪ সেন্টে।

আলোচ্য কার্যদিবসে সুদের হার অপরিবর্তিত রেখেছে ফেড। মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের চেয়ারম্যান জেরোম পাওয়েল ইঙ্গিত দিয়েছেন আসন্ন বসন্তে সুদহার কমানো হবে। তবে সেটা আগামী মার্চে নয়। অথচ বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা ছিল ওই মাসেই তা হ্রাস করা হবে।

নিউইয়র্কভিত্তিক স্বাধীন ধাতু ব্যবসায়ী তাই ওয়াঙ বলেন, আসছে মার্চে সুদের হার না কমানোর সংকেত দিয়েছেন ফেড চেয়ারম্যান পাওয়েল। ফলে স্বর্ণের দরপতন ঘটেছে।

ইতোমধ্যে মনোভাব পাল্টিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। তারা মনে করছেন, আগামী মার্চে সুদের হার কমাতে পারে ফেড। এমনটি হলে আপাতত উচ্চ হারে বুলিয়নের দাম বৃদ্ধির সম্ভাবনা নেই। সেটা ২০০০ ডলারের আশপাশেই থাকবে।