আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিনের ব্যাপক দরপতন ঘটেছে। সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) শিকাগো বোর্ড অব ট্রেডে (সিবিওটি) তেলবীজটির দাম ২৭ মাসের মধ্যে সর্বনিম্নে নেমে গেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের শেয়ারবাজারভিত্তিক প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম নাসডাকের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে।

এতে বলা হয়, আলোচ্য কার্যদিবসে প্রধান বৈশ্বিক মুদ্রা মার্কিন ডলারের মান আরও বেড়েছে। সেই সঙ্গে বিশ্ববাজারে সয়াবিনের সরবরাহ ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে ভোজ্যতেল তৈরির মূল উপকরণ বড় দর হারিয়েছে।

আলোচিত দিনের শেষ ভাগে সিবিওটিতে সবচেয়ে সক্রিয় সয়াবিনের চুক্তি মূল্য হ্রাস পেয়েছে শূন্য দশমিক ২ শতাংশ। প্রতি বুশেলের দাম স্থির হয়েছে ১১ ডলার ৮৫ সেন্টে। কর্মদিবসের শুরুতে যা ছিল ১১ ডলার ৮৩ সেন্টে। ২০২১ সালের নভেম্বরের পর তা সবচেয়ে কম।

বিদায়ী জানুয়ারিতে ইউএস শ্রমবাজারে প্রত্যাশার চেয়ে বেশি মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। তাতে আগামী মার্চে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের (ফেড) সুদের হার কমানোর সম্ভাবনা উবে গেছে। এই প্রেক্ষাপটে ডলারের মূল্যমান ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে। ফলে চাপে পড়েছে সয়াবিনের বাজার।

বিশ্বের শীর্ষ সয়াবিন রপ্তানিকারক যুক্তরাষ্ট্র। সম্প্রতি দেশটির তেলবীজটির রপ্তানি মূল্য হ্রাস পেয়েছে। পরিপ্রেক্ষিতে ভোজ্যতেল, সাবান, শ্যাম্পু তৈরির উপাদানের দাম আরও কমেছে।

এছাড়া দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের ব্রাজিল, আর্জেন্টিনায় পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত হয়েছে। তাতে দেশ দুটিতে সয়াবিন চাষ তরান্বিত হয়েছে। ফলে সেগুলো থেকে পণ্যটি সরবরাহের সম্ভাবনা বেড়েছে। সঙ্গত কারণে দরে পতন ঘটেছে।